জন্ম'দিনে কেউ মনে রাখেনি দিলদারকে!

বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি কৌতুক অ'ভিনেতা দিলদার। পর্দায় তার উপস্থিতি দর্শককে বাড়তি বিনোদন যোগাত। যা তাকে এনে দিয়েছিল তুমুল দর্শকপ্রিয়তা। দিলদারের স্ত্রী' রোকেয়া বেগম। এই দম্পতির দুই কন্যা সন্তান। বড় মে'য়ের নাম মাসুমা আক্তার। পেশায় তিনি দন্ত চিকিৎসক। ছোট মে'য়ের নাম জিনিয়া।

বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) দিলদারের ৭৭তম জন্ম'দিন ছিল। ১৯৪৫ সালের এই দিনে চাঁদপুরে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। কিন্তু তার জন্ম'দিনকে ঘিরে কোথাও তেমন কোনো আয়োজন দেখা যায়নি। মৃ'ত্যুর দুই দশক পার না হতেই সিনেমাপাড়ার মানুষরা যেন তাকে ভুলতে বসেছেন!

দিলদার এসএসসি পাস করার পর পড়াশোনা বাদ দিয়ে দেন। ১৯৭২ সালে ‘কেন এমন হয়’ নামের সিনেমা দিয়ে বড় পর্দায় অ'ভিষেক ঘটে তার। সেই শুরু, এরপর দেশীয় চলচ্চিত্রের ইতিহাসে কৌতুক অ'ভিনেতা হিসেবে দিলদার বারবার ছাড়িয়ে গেছেন নিজেকেই।

দিলদারের জনপ্রিয়তা দেখে তাকে নায়ক করে নির্মাণ করা হয়েছিল ‘আবদুল্লাহ’ নামের একটি সিনেমা। এটি দর্শকমহলে ব্যাপক সাড়া ফেলেছিল। এতে দিলদারের নায়িকা ছিলেন নূতন।

চলচ্চিত্রে সুদীর্ঘ ক্যারিয়ারে তিনি উপহার দিয়ে গেছেন- ‘বেদের মে'য়ে জোসনা’, ‘বি'ক্ষোভ’, ‘অন্তরে অন্তরে’, ‘কন্যাদান’, ‘চাওয়া থেকে পাওয়া’, ‘শুধু তুমি’, ‘স্বপ্নের নায়ক’, ‘আনন্দ অশ্রু’, ‘অজান্তে’, ‘প্রিয়জন’, ‘প্রা'ণের চেয়ে প্রিয়’, ‘নাচনেওয়ালী’সহ আরও অনেক জনপ্রিয় সিনেমা।

Back to top button

You cannot copy content of this page